• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

Advertise your products here

Advertise your products here

Advertise your products here

১৪ই এপ্রিল আজ নব আনন্দে বর্ষবরণ: স্বাগতম ১৪২৯


Newsofdhaka24.com ; প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৪:৫৪ পিএম
পহেলা বৈশাখ
আজ পহেলা বৈশাখ,

স্বাগত জানাই  সবাইকে আজ পহেলা বৈশাখ, বাংলা বছরের আজ নতুন দিনের সূচনা।
আজ১৪২৯ সন কে সাদরে স্বাগতম জানানোর দিন।
মহামারি করোনা সঙ্গে লড়তে লড়তে বিগত দুই বছর পহেলা বৈশাখ কেটেছে।
মহামারী করোনার ভয়, দুর্বল, সংকট ,সংশয় কাটিয়ে নতুন আনন্দে উজ্জীবিত সুরে আজ বাঙালির মন।
এই নতুন বছরে যতসব অশুভ, জীর্ণ, অমলিন কে পেছনে ফেলে এগিয়ে যাওয়ার দিন।
এবারের পহেলা বৈশাখ টা রোজার মধ্যে হয়ো মানুষ সংযমী হয়ে নববর্ষের শুভেচ্ছা উদযাপন করছে।
অবিচ্ছেদ্য অবস্থান থেকে সরে আসবে এ উৎসবে পান্তা-ইলিশ।


আগের মত হালখাতার চল না থাকলেও পুরান ঢাকার ব্যবসায়ী নতুন খাতা খুলে নতুন বছরকে শুরু করবেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং রাষ্ট্রপতি মো আবদুল হামিদ পৃথক বাণী দেশে ও দেশের বাইরে বসবাসরত সব বাঙালিকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।
অতীতের সব ব্যর্থতা জরাজীর্ণ রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন দেশবাসীকে পেছনে ফেলে নতুন উদ্দীপনা ও উৎসাহের সঙ্গে আগামী দিনে এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছে।
সেই ১৯৬৭ সাল থেকে বাংলা সংস্কৃতির অনুষ্ঠান বাংলা নববর্ষের অনুষ্ঠান করে আসছে। প্রতিবছরে রমনা বটমূলে সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ছায়ানট প্রথমবারের মতো নববর্ষের আয়োজন করে।
ছায়ানটের সভাপতি ও বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গনের সানজিদা খাতুন কয়েকদিন আগে রমনা বটমূলের আয়োজন নিয়ে বাংলা নববর্ষ দেশে গণ্ডিত ছড়িয়ে ধর্ম-বর্ণ-নির্বিশেষে বিশ্ব বাংলার প্রধান উৎসব বাংলা ঐতিহ্যের বলে জানিয়েছেন।
রমনা বটমূলের এই আয়োজন অর্ধশতাধিক বছরে এই উৎসবের ধারায় বাঙালি প্রত্যাবর্তন হয়ে সংযমী ,প্রানবন্ত ,আনন্দ, বিপর্যয় ,বিনাশের অঙ্গীকারে বলিয়ান থাকে।
এবারের প্রতিপাদ্য ''জাগো নব আনন্দে জাগো''ছায়ানটের বর্ষবরণ উৎসবে।
মহামারি করোনা থেকে গাছড়া দিয়ে নতুন আনন্দে জেগে ওঠার উজ্জীবিত মন্ত্র।


লাইসা আহমদ লিসা ছায়ানটের সাধারণ সম্পাদক এবারের আয়োজন সম্পর্কে কালের কণ্ঠ কে বলেছেন বরাবরের মতো ৬টা থেকে অনুষ্ঠান শুরু হবে যন্ত্র কন্ঠে সকালের সুর তালে।
এরপর শুরু হবে আবৃত্তি, পাঠ, একক সম্মেলন, ছায়ানটের বক্তব্য সভাপতির কথন উপস্থাপন । সবশেষে হবে জাতীয় সংগীত গাওয়া।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের মঙ্গল শোভাযাত্রার হচ্ছে বাংলা নববর্ষের অন্যতম প্রধান অনুষঙ্গ।
২০২০ সালে মহামারী করোনার কারণে মঙ্গল শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয়নি।


শোভাযাত্রার প্রতিপাদ্য করা হবে, রজনীকান্ত সেনের গানের কলি নির্মল করো মঙ্গল করো মলিন মর্ম মুছায়ে,।
মঙ্গল শোভাযাত্রার প্রতীক হিসেবে তৈরি করা হয়েছে ঘোড়া ,মাছ ,পাখি, টেপা পুতুল ইত্যাদি চারটি বড় বড় প্রতীক।
মঙ্গল শোভাযাত্রা টিএসসির সামনে রাজু ভাস্কর্য প্রাঙ্গণ থেকে সকাল ৯ টায় বের করা হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তর জানিয়েছে নির্মাণাধীন মেট্রোরেল প্রকল্পের কারণে।

Newsofdhaka24.com / নিজস্ব প্রতিবেদক

উৎসব / দিবস বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ