• ঢাকা
  • শনিবার, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৩ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

Advertise your products here

Advertise your products here

Advertise your products here

বোয়ালমারীতে বিএনএমের বিশেষ বর্ধিত সভা


Newsofdhaka24.com ; প্রকাশিত: সোমবার, ১৮ ডিসেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১০:২৭ পিএম
বোয়ালমারী,
বিএনএম,

টুটুল বসু, বোয়ালমারী (ফরিদপুর) প্রতিনিধি:

এমপি নির্বাচিত হলে ঘুষ-দুর্নীতি বন্ধ করে দিবো- শাহ্ জাফর

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রচারণার প্রথম দিন ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে বিশেষ বর্ধিত সভা করেছেন বিএনএম (বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলন)। বর্ধিত সভায় দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও ফরিদপুর ১ আসনের বার বার নির্বাচিত সাবেক সংসদ, বিএনএমের প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহ্ মোঃ আবু জাফর প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন। সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় বোয়ালমারী সরকারি কলেজ রোডস্থ নিজ বাসভবনের সামনে বোয়ালমারী উপজেলাধীন বিভিন্ন ইউনিয়নের নেতাকর্মীদের নিয়ে এ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। সাবেক কৃষকদল নেতা আব্দুল কুদ্দুস মোল্যার সভাপতিত্বে ও কামরুজ্জামান হাসানের সঞ্চালনায় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শাহ্ মো. আবু জাফর বলেন, আমি এ আসনে চারবার এমপি ছিলাম। জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলাম। ক্ষমতায় থাকা কালে আমি কোনো প্রকার দুর্নীতি করিনি। কারো প্রতি কোনো জুলুম অত্যাচার করিনি। আমি কারো কাছ থেকে কোনো আর্থিক সুবিধাও নেইনি। আমি মানুষের কল্যাণে রাজনীতি করি। আমার যদি অর্থের লোভ থাকতো তাহলে মুক্তিযুদ্ধের সময় লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারতাম। হাজার হাজার বিঘা জমি লিখে নিতে পারতাম। কেউ বলতে পারবে না আমি এক শতাংশ জমি জবরদখল করেছি। আজ যারা বলে, আমি টাকার জন্য দল পরিবর্তন করেছি, তারাও বলতে পারবে না আমি তাদের কারও কাছ থেকে দশটা টাকা নিয়েছি। বরং আমি মানুষকে বিনাপয়সায় চাকরি দিয়েছি। আমার অনুসারী হাজার হাজার নেতাকর্মীদের বাঁচাতে বিএনএমে যোগদান করেছি। আমি বিএনপিকে বলেছিলাম নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে, বিএনপি নির্বাচনে আসেনি। আমার সমর্থকদের বিপদ থেকে রক্ষা করতে নির্বাচনে এসেছি। আমি কোনো ইঞ্জিনিয়ার থেকে পার্সেন্টেজ নেই নাই। কোনো অফিসার থেকে টাকা নেয়নি। আমার পরে যারা এমপি হয়েছে, তারা ঘুষ, দুর্নীতি ও নিয়োগ বাণিজ্যে মেতে উঠেছিল। প্রাইমারী স্কুলের দপ্তরি নিয়োগেও ১০/১২ লাখ টাকা ঘুষ নিয়েছে। এমন কোনো চাকরি নেই যে টাকা ছাড়া হয়েছে। এমপিরা যদি ঘুষ খায় অফিসাররা তো ঘুষ খাবেই। আমি কথা দিচ্ছি, ‘এমপি নির্বাচিত হলে আপনাদের সাথে নিয়ে এলাকার ঘুষ দুর্নীতি বন্ধ করে দিবো।’ কোনো অফিসার যদি গোপনেও ঘুষ দাবি করে আর আমি সে বিষয়টি জানতে পারলে তাকে ৭ দিনের মধ্যে তল্পিতল্পা বেধে এলাকা ছেড়ে চলে যেতে হবে।
এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বোয়ালমারী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মো. আতিয়ার রহমান, মধুখালী উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. গোলাম মুনসুর নান্নু, বোয়ালমারী পৌরসভার সাবেক কাউন্সিলর শেখ আতিকুল আলী, বিএনপির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নানক কুমার বিশ্বাস, বোয়ালমারী পৌর বিএনএমের সমন্বয়কারী মামুন মৃধা মিরাজ, সাবেক ছাত্রনেতা ওয়াহিদুজ্জামান, গুনবহা ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মোঃ নাজমুল হাসান, মোঃ রফিকুল ইসলাম বাদশা, মিন্টু মেম্বার, আবুল হোসেন, আব্দুল হাকিম প্রমুখ।

 টুটুল বসু
প্রতিনিধি
বোয়ালমারী, ফরিদপুর।

Newsofdhaka24.com / News

রাজনীতি বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ